Headlines News :
Home » » জকিগঞ্জে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স আছে, নেই পর্যাপ্ত চিকিৎসা

জকিগঞ্জে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স আছে, নেই পর্যাপ্ত চিকিৎসা

Written By zakigonj news on মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট, ২০১৯ | ৩:৩৩ PM

রহমত আলী হেলালী
জনবল সংকট ও প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি বিকল হয়ে পড়ায় খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলছে সিলেটের সীমান্তবর্তী জকিগঞ্জ উপজেলা সরকারি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসা কার্যক্রম। ফলে কাংখিত সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন রোগীরা। জনবল সংকটের কথা স্বীকার করে সমাধানের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে বলে জানান উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা।
সিলেট জেলা শহর থেকে প্রায় শত কিলোমিটার দূরবর্তী জকিগঞ্জ উপজেলার প্রায় আড়াই লাখ মানুষের চিকিৎসার জন্য এই সরকারি হাসপাতালটি একমাত্র ভরসাস্থল। ৩১ শয্যার এ হাসপাতালে দীর্ঘদিন ধরে চলছে চিকিৎসক ও নার্স সঙ্কট। ফলে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষায় থাকতে হয় দূর-দূরান্তের রোগীদের। হাসপাতালটিতে এক্সরে, ইসিজি ও আল্ট্রাসোনোগ্রাম মেশিন বেশ কয়েক বছর ধরে বিকল। ফলে রোগ নির্ণয়ের কোন ব্যবস্থা না থাকায় পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য প্রায় একশত কিলোমিটার দূরে সিলেট জেলা শহরে যেতে বাধ্য হচ্ছেন রোগীরা। হাসপাতালে ভর্তি হলে পর্যাপ্ত ঔষধ সরবরাহ করা হয়নি বলে রোগীদের অভিযোগ।
রোগী ও স্বজনরা অভিযোগ করে জানান, জকিগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বেহাল অবস্থা বিরাজ করছে। 'হাসপাতালে নার্স নেই, ডাক্তার নেই সব কিছুর সংকট। সময় মতো ডাক্তার না থাকা, ঔষধ বিতরণে অনিয়ম, রোগীদের  সঙ্গে নার্সদের দুর্ব্যবহার, খাওয়ায় অব্যবস্থাপনা ও যন্ত্রপাতি অচল থাকা আর অপরিষ্কার অপরিচ্ছন্নতায় এ বেহাল অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। ফলে স্বাস্থ্য সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন জকিগঞ্জ উপজেলা সহ আশে পাশে দুই উপজেলার প্রায়  ৩ লাখ মানুষ ।
তবে স্বদিচ্ছা থাকা সত্ত্বেও বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক সহ জনবল সংকট থাকায় রোগীদের যথাযথ সেবা দেয়া যাচ্ছেনা বলে জানান ডাক্তার ও নার্সরা। তাদের মতে, বেশি রোগীর চাপের জন্য অনেক ঝামেলার সৃষ্টি হয়। রোগীরা নানা রকমের চাপ প্রয়োগ করে। প্রতিদিন হাসপাতালে আউটডোরে প্রায় ৩শ জন রোগী আসেন। ইনডোরে ৪০-৪৫ জন রোগী ভর্তি হয়।
হাসপাতাল সূত্র জানায়, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডাক্তারের ১৯টি পদ রয়েছে। তার মধ্যে কর্মরত আছেন ৩ জন ডাক্তার। কোনো বিশেষজ্ঞ ডাক্তার নেই। ৯ জন নার্সের মধ্যে কর্মরত আছেন ৭ জন। ইনডোরে শয্যা সংকটের কারণে রোগীকে ফ্লোরে রাখা হয়। ফার্মাসিস্টের ৪ টি পদ-ই শূন্য। দাঁতের ডাক্তারের ২ টি পদ শূন্য। তৃতীয় শ্রেনীর ১০৮টি পদের মধ্যে ৩৯টি পদ শূন্য রয়েছে। চতুর্থ শ্রেনীর কর্মচারীর ১৯ টি পদের মধ্যে ৫ টি পদ শূন্য। হাসপাতালে বাবুর্চি নেই। ঝাড়ুদারের ৫ টি পদের বিপরীতে আছেন মাত্র ২ জন।
হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের মতে, প্রতিদিন রোগীর সঙ্গে সহ¯্রাধিক লোক আসা-যাওয়া করায় ২ জন ঝাড়–দারের পক্ষে এতো ময়লা আবর্জনা পরিস্কার করা সম্ভব হয়ে উঠে না। নিজস্ব অর্থায়নে ২জন ঝাড়ুদার নিয়োগ করেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা। মাত্র ৩ জন ডাক্তার হাসপাতালে আগত রোগীদের চিকিৎসা দিতে হিমশিম খাচ্ছেন।
জানা যায়, স্বাস্থ্য সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে সরকার জকিগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সকে ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যায় উন্নীত করার লক্ষ্যে একটি ভবন নির্মাণ করলেও ভবনটি বেশ কয়েক বছর থেকে প্রশাসনিক অনুমোদন না পাওয়ায় চালু হয়নি। তবে সম্প্রতি জকিগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান লোকমান উদ্দিন চৌধুরীর ঐক্লান্তিক প্রচেষ্ঠায় শীঘ্রই ভবনটি চালু করা হবে হাসপাতাল সূত্র জানায়।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মেহদী বলেন, হাসপাতালে কোন অনিয়ম প্রমাণসহ আমাকে কেউ অবহিত করলে তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা নেব। আমাকে কেউ কখনো কোন অনিয়মের কথা বলেনি। সাম্প্রতিক ডেঙ্গু প্রসঙ্গে তিনি বলেন, জকিগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্রেক্সে এখনো কোনো ডেঙ্গু রোগী পাওয়া যায়নি। তবে ডেঙ্গু মোকাবেলায় আমাদের পর্যাপ্ত প্রস্তুতি রয়েছে।
Share this article :

0 মন্তব্য:

Speak up your mind

Tell us what you're thinking... !

ফেসবুক ফ্যান পেজ

 
Founder and Editor : Rahmat Ali Helali | Email | Mobile: 01715745222
25, Point View Shopping Complex (1st Floor, Amborkhana, Sylhet Website
Copyright © 2013. জকিগঞ্জ সংবাদ - All Rights Reserved
Template Design by Green Host BD Published by Zakigonj Sangbad