Headlines News :
Home » » জকিগঞ্জে ইসলামি দলগুলো ঐক্যবদ্ধ প্রার্থী না দিলে ইউনিয়ন নির্বাচনে চরম ভরাডুবির আশংকা

জকিগঞ্জে ইসলামি দলগুলো ঐক্যবদ্ধ প্রার্থী না দিলে ইউনিয়ন নির্বাচনে চরম ভরাডুবির আশংকা

Written By zakigonj news on বুধবার, ৩০ মার্চ, ২০১৬ | ১২:১৮ AM

রহমত আলী হেলালী
জকিগঞ্জে আসন্ন ইউনিয়ন নির্বাচনকে সামনে রেখে ইসলামি দলগুলো নিজ নিজ দল থেকে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী দেয়ার প্রস্তুতি নিয়েছেন। ইউনিয়ন নির্বাচনে নিজ নিজ দলের প্রার্থী বাছাইয়ে খেলাফত মজলিস ও জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বেশ কয়েকটি বৈঠক করেছে। খেলাফত মজলিস গত ১০ মার্চ বৃহস্পতিবার উপজেলা নির্বাহী বৈঠকে ৭টি ইউনিয়নে তাদের প্রার্থী চুড়ান্ত করেছে। তারা হলেন- ২নং বিরশ্রী ইউনিয়নে আব্দুস শহীদ, ৩নং কাজলসার ইউনিয়নে রহমত আলী হেলালী, ৪নং খলাছড়া ইউনিয়নে মুহাম্মদুল্লাহ বুলবুল, ৫নং জকিগঞ্জ ইউনিয়নে মাওলানা আলাউদ্দিন তাপাদার, ৬নং সুলতানপুর ইউনিয়নে বুরহান উদ্দিন, ৮নং কসকনকপুর ইউনিয়নে মাওলানা আব্দুল আহাদ ও ৯নং মানিকপুর ইউনিয়নে জোবায়ের আহমদ চৌধুরী আলমগীর। অপরদিকে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম তাদের চুড়ান্ত প্রার্থী নির্ধারণ না করলেও ৭টি ইউনিয়নে সম্ভাব্য প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেছে। তারা হলেন- ১নং বারহাল ইউনিয়নে মাওলানা কামাল উদ্দিন, ২নং বিরশ্রী ইউনিয়নে মাওলানা আব্দুল মুছাব্বির, ৩নং কাজলসার ইউনিয়নে মাওলানা সালেহ আহমদ দেওয়ানী, ৬নং সুলতানপুর ইউনিয়নে মাওলানা ইউনুছ আহমদ খাদিমানী, ৭নং বারঠাকুরী ইউনিয়নে মাওলানা ফারুক আহমদ, ৮নং কসকনকপুর ইউনিয়নে মাওলানা হুমায়ুন কবীর বাবর, ৯নং মানিকপুর ইউনিয়নে মাওলানা জিয়াউর রহমান ফারুকী। এছাড়া জামায়াতে ইসলামি ও অনিবন্ধিত ইসলামি সংগঠন আন্জুমানে আল-ইসলাহ্ এখন পর্যন্ত তাদের চুড়ান্ত প্রার্থী বাছাই করতে না পারলেও কয়েকটি ইউনিয়নে তাদের সম্ভাব্য প্রার্থীর নাম শুনা যাচ্ছে। তন্মধ্যে জামায়াতে ইসলামির প্রার্থী হিসেবে যাদের নাম শুনা যাচ্ছে তারা হলেন- ১নং বারহাল ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ চৌধুরী, ২নং বিরশ্রী ইউনিয়নে আব্দুল জলিল মেম্বার, ৫নং জকিগঞ্জ ইউনিয়নে আজিজুর রহমান (কালন মেম্বার), ৭নং বারঠাকুরী ইউনিয়নে আব্দুল আজিজ মেম্বার ও ৯নং মানিকপুর ইউনিয়নে লুৎফুল্লাহেল মাজেদ এবং জুবায়ের আহমদ। অন্যদিকে আল-ইসলাহ্ এখন পর্যন্ত তাদের প্রার্থী দিবে কি দিবে না মর্মে সিদ্ধান্তহীনতায় থাকলেও কিছু কিছু ইউনিয়নে তাদের সমর্থিত প্রার্থী নির্বাচনে আসবেন বলে প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন। তবে জকিগঞ্জে শক্তিশালী অবস্থানে থাকা এ ৪টি সংগঠন পৃথক পৃথক প্রার্থী দিচ্ছে শুনে সচেতন মহলে বেশ আলোচনা শুরু হয়েছে। জকিগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার প্রায় শতাধিক মানুষের মতে আলিম-ওলামা, পীর-মাশায়েখের ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত জকিগঞ্জের ইউনিয়ন নির্বাচনে ইসলামি দলগুলো ঐক্যবদ্ধ প্রার্থী না দিলে নির্বাচনে চরম ভরাডুবির আশংকা রয়েছে। কেননা ইসলামি দলগুলোর সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে যাদের নাম শুনা যাচ্ছে তাদের বেশীর ভাগের-ই নিজ এলাকায় পরিচিতি বা ব্যক্তি ইমেজ খুবই কম। তাছাড়া সাধারণ মানুষ ইসলামি দল থেকে পৃথক পৃথক প্রার্থী দেখলে বিব্রতবোধ করবে। তারা বর্তমান সমাজ ব্যবস্থার বিবেচনায় ইসলামি দলগুলোর প্রার্থীকে দূর্বল আখ্যায়িত করে আলেম-ওলামাদের অনৈক্যের বিষয়টিকে সামনে এনে ভোট দিতে অনীহা প্রকাশ করতে পারে। যা অতিতের বেশ কয়েকটি নির্বাচনে পরিলক্ষিত হয়েছে। তবে এদের অনেকে-ই মনে করেন, জকিগঞ্জ উপজেলায় ইসলামি দলগুলোর অবস্থান বেশ শক্তিশালী। যার জ্বলন্ত প্রমাণ হিসেবে তারা বিগত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩টি ইসলামি দলের প্রার্থীর অবস্থান তুলে ধরেন। তারা মনে করেন, বিগত উপজেলা নির্বাচনে ভোটের হিসেবে জামায়াতে ইসলামি, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম ও খেলাফত মজলিস উপজেলাবাসীর দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়েছে। তিনটি সংগঠনের প্রার্থী যথাক্রমে জামায়াতের গোলাম রোকবানী চৌধুরী জাবেদ (চশমা), জমিয়তের বিলাল আহমদ ইমরান (টিউবওয়েল) ও মুহাম্মদুল্লাহ বুলবুল (তালা) তাদের মোট প্রাপ্ত ভোট পুরো উপজেলায় প্রদত্ত ভোটের অর্ধেকের বেশি ছিল। বিশেষ করে এ উপজেলায় জামায়াতে ইসলামী, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম, খেলাফত মজলিস ও আঞ্জুমানে আল ইসলাহ’র অবস্থান বেশ শক্তিশালী। বিগত ৩০ ডিসেম্বর জকিগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনেও আন্জুমানে আল ইসলাহ সমর্থিত প্রার্থী কাজী হিফজুর রহমান (মোবাইল ফোন) ও খেলাফত মজলিস মনোনীত প্রার্থী মোঃ জাফরুল ইসলাম (দেওয়াল ঘড়ি) নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে ভোটের লড়াইয়ে সর্ব মহলের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়েছেন। জকিগঞ্জের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ মনে করেন, ইসলামি দলগুলো নিজেদের ভেদাভেদ ভূলে ঐক্যবদ্ধ নির্বাচন করলে তাদের সংখ্যাগরিষ্ট প্রার্থীর বিজয় সুনিশ্চিত হবে। ঐক্যের বিষয়ে জকিগঞ্জের বিশিষ্ট আলেম-ওলামাদের মতে, যখন থেকেই এই জগত সংসার শুরু তখন থেকেই শুরু মতের অমিল বা চিন্তার ভিন্নতা। আল্লাহ যখন চাইলেন এই দুনিয়ায় মানুষ প্রেরণ করবেন তখন ফেরেশতারা দ্বিমত পোষণ করে বসলেন এই বলে যে, হে খোদা! আমরাই তো তোমার ইবাদত-বন্দেগি করার জন্য যথেষ্ট, আবার মানুষ কেন? আদমপুত্র হাবিল-কাবিলের মধ্যে চিন্তার অমিল ছিল। বিয়ের প্রশ্নে হজরত আদমের সিদ্ধান্তের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করে তারা। সেই পুরনো যুগ থেকে আজ পর্যন্ত মানুষে মানুষে মতবিরোধ চলে আসছে। এই মতপার্থক্য অবধারিত। এর থেকে বাঁচার কোনো উপায় নেই। বলা হয়, ‘মৃতরা মতবিরোধ করে না, যেখানে জীবন আছে সেখানে মতদ্বৈধতা আছে।’ আল্লাহতায়ালা আমাদের বহু রূপে, বহু গুণে সৃষ্টি করেছেন। এক ব্যক্তি থেকে আরেক ব্যক্তির মধ্যে অনেক ব্যবধান রেখেছেন। সেই ব্যবধান চিন্তার, সেই ব্যবধান রুচিবোধ ও মননের। কিন্তু তারপরও তিনি আমাদের ঐক্যবদ্ধ হতে বলেছেন আমাদের স্বার্থেই। পবিত্র কোরআনে এসেছে, ‘তোমরা আল্লাহর রজ্জুকে ঐক্যবদ্ধভাবে আঁকড়ে ধর এবং পরস্পর বিচ্ছিন্ন হয়ো না’ (সুরা আল ইমরান : ১০৩)। অথচ আমাদের মাতৃভূমি সোনার বাংলাদেশ এখন অশান্তির সাগরে হাবুডুবু খাচ্ছে। এর একমাত্র কারণ জাতীয় অনৈক্য। দলে দলে বিভক্ত হয়ে পড়েছি আমরা। একে অপরের দিকে কাদা ছোড়াছুড়িতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছি। অনৈক্য তো চোখে পড়ার মতো। আলেম-উলামা, দল-মত নির্বিশেষে সবার এই অনৈক্যকে সুযোগ হিসেবে কাজে লাগিয়েছে ইসলামবিরোধী অপশক্তি। আজ আল্লাহকে গালি দেয়া হচ্ছে। গালি দেয়া হচ্ছে আমাদের প্রিয় রাসুল হজরত মুহাম্মদ (সা.)কে। রাসুলের সহধর্মিণীদের চরিত্র হনন করা হচ্ছে অশ্লীল কায়দায়। কোরআন, হাদিস, মসজিদ, মাদরাসা, ইসলামি রাজনীতি, ইসলামি অর্থনীতি, ইসলামি সংস্কৃতি ও মূল্যবোধকে বিদায় করার সব আয়োজন আজ সম্পন্ন। এক কথায়, তাওহিদপন্থী মুসলমানের বিরুদ্ধে বাতেল শক্তি আজ একাট্টা। এদেশের ইসলামপন্থী শক্তির এখন সিদ্ধান্ত নিতে হবে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার। এদেশে ইসলামের পতাকা উড্ডীন রাখতে হলে সবাইকে আজ একতার শপথ গ্রহণ করা প্রয়োজন। আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আলেম-ওলামা খ্যাত পূণ্যভূমি জকিগঞ্জ থেকে সে ঐক্যের ডাক দেয়া উচিত। বিশিষ্ট আলেমদের এ মতের প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন জকিগঞ্জ উপজেলা খেলাফত মজলিসের সেক্রেটারী মাওলানা আলাউদ্দিন তাপাদার, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের সেক্রেটারী মাওলানা বিলাল আহমদ ইমরান ও আনজুমানে আল-ইসলাহ’র সেক্রেটারী মাওলানা আব্দুল কাদির। তারা আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ইসলামপন্থীদের বৃহত্তর ঐক্যের চিন্তা করছেন বলে জকিগঞ্জ সংবাদকে জানিয়েছেন।
Share this article :

0 মন্তব্য:

Speak up your mind

Tell us what you're thinking... !

ফেসবুক ফ্যান পেজ

 
Founder and Editor : Rahmat Ali Helali | Email | Mobile: 01715745222
25, Point View Shopping Complex (1st Floor, Amborkhana, Sylhet Website
Copyright © 2013. জকিগঞ্জ সংবাদ - All Rights Reserved
Template Design by Green Host BD Published by Zakigonj Sangbad