Headlines News :
Home » » কালাম চৌধুরীর মৃত্যু: বিএসএফের নিষ্ঠুরতা-ই দায়ী!

কালাম চৌধুরীর মৃত্যু: বিএসএফের নিষ্ঠুরতা-ই দায়ী!

Written By zakigonj news on শুক্রবার, ৮ জানুয়ারী, ২০১৬ | ৬:৩৯ PM

রহমত আলী হেলালী
জকিগঞ্জ উপজেলার বিরশ্রী ইউনিয়নের পশ্চিম জামডহর গ্রামের মৃত শখই মিয়া চৌধুরীর ছেলে আবুল কালাম চৌধুরীর মৃত্যু নিয়ে ভারতীয় বিএসএফের নিষ্ঠুরতাকে দায়ী করছেন এলাকার লোকজন। তাদের মতে, বিএসএফের নির্মম নিষ্ঠুরতা-ই প্রাণ হারিয়েছেন কুশিয়ারা নদীতে সখের বশে মাছ শিকার করতে যাওয়া কালাম চৌধুরী। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী তজম্মুল চৌধুরী জানান, গত ২ জানুয়ারী শনিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে তিনি কালাম চৌধুরীর সাথে সীমান্ত নদী কুশিয়ারায় মাছ শিকার করে নৌকা নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। পথিমধ্যে পিয়াইপুর এলাকার কুশিয়ারা নদীর ডরে আসা মাত্র ভারতীয় বিএসএফের একটি ডহল দল তাদেরকে হানা দেয়। এ সময় তারা নিজেদের মাছ শিকারী বলে জানালেও স্পিট বোট নিয়ে তাদের নৌকায় এসে বিএসএফ ধাক্কা দেয়। এতে তারা উভয়ে নদীতে পড়ে গেলে তজম্মুল চৌধুরী নিজে সাতরিয়ে উপরে উঠতে সক্ষম হলেও কালাম চৌধুরী উপরে উঠতে পারেননি। তখন কালাম চৌধুরী ‘বাঁচাও বাঁচাও’ বলে চিৎকার শুরু করলে বিএসএফ তাকে পানি থেকে না উঠিয়ে উল্টো ওই জায়গায় তাদের স্পিট বোট ঘুরাতে শুরু করে। এক পর্যায়ে কালাম চৌধুরীর আর কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে উপরে উঠে আসা তজম্মুল চৌধুরী তাকে কয়েকটি ডাক দিলে কোন উত্তর পাননি। বিএসএফের আতংকে থাকা তজম্মূল চৌধুরী তাৎক্ষণিক বিষয়টি কালাম চৌধুরীর পরিবারকে জানালে ভোরে লোকজন নৌকা নিয়ে খুজাখুজি করে তাকে পায়নি। পরে সিলেট ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দলসহ এলাকার জেলেরা জাল দিয়ে খুজে কালাম চৌধুরীকে না পেয়ে হতাশ হয়ে পড়েন। অবশেষে ঘটনার চারদিন পর গতকাল ৭ জানুয়ারী বৃহস্পতিবার সকালে কালাম চৌধুরীর লাশ ঘটনাস্থলে ভেসে উঠে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে সুরুতহাল রিপোর্ট তৈরী করে পরিবারের সম্মতিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি সাপেক্ষে লাশ দাফনে অনুমতি প্রদান করেন। ওইদিন বিকাল সাড়ে চারটায় স্থানীয় শেরুলভাগ মাদ্রাসা মাঠে তার জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। এ প্রসঙ্গে কালাম চৌধুরী স্বজনদের অনেকে জানান, ময়নাতদন্তের বিষয়টি চিন্তা করে পরিবারের সদস্যরা তাকে বিএসএফ কর্তৃক মারপিট হয়েছে তা বলা হয়নি। প্রকৃত পক্ষে কালাম চৌধুরীর মাথায় ও মুখে কয়েকটি আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এতে পরিস্কার প্রতিয়মান হয়, কালাম চৌধুরী পানিতে পড়ার পর বিএসএফের হামলার শিকার হয়েছেন। এ বিষয়ে জকিগঞ্জ থানার এসআই শরীফ উদ্দিন আঘাতের বিষয়টি আংশিক শিকার করে বলেন, ছুরতহাল রিপোর্টে মৃত কালাম চৌধুরীর পুরো শরীর ফোলা থাকলেও মাথার পেছনে তেতলানো একটি দাগ পাওয়া যায়। তবে সিলেট সীমান্তের ৪১ বর্ডার গার্ড ব্যটালিয়নের সোনাপুর বিওপি কামান্ডার বলেন, কালাম চৌধুরী নিখোঁজের পরের দিন সকালে আমরা  তাৎক্ষণিক ভারতের জগন্নাথপুর ক্যাম্পের বিএসএফের সাথে পতাকা বৈঠক করি। বৈঠকে কালাম চৌধুরীর ব্যবহৃত মাছ শিকারের নৌকায় বিএসএফের স্পিট বোটের ধাক্কা কিংবা মারপিটের বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে বিএসএফ এমন কিছু হয়নি বলে বিজিবিকে জানিয়েছে। তবে ধারণা করা হচ্ছে বিএসএফের স্পিট বোট দেখে পানিতে পড়ে মারা যান কালাম চৌধুরী। মাথার পেছনে তেতলানো আঘাতের বিষয়টি জিজ্ঞাসা করলে বিজিবি কামান্ডার বলেন, হয়তো ৪/৫ দিন লাশ পানিতে থাকায় এমনটি হয়েছে।  তবে এলাকার সচেতন মহলের মতে, বিএসএফের নির্মম নিষ্ঠুরতা-ই প্রাণ হারিয়েছেন কালাম চৌধুরী। প্রচন্ড টান্ডার রাতে দু’জন বাঙ্গালীকে বিএসএফ পানিতে ফেলে দেয়ার পরও রক্ষা দেয়নি। তারা কালাম চৌধুরীর বাঁচাও বাঁচাও চিৎকার শুনে উল্টো আঘাত করে অজ্ঞান করে দেয়। নতুবা কেন কয়েক মিনিটের মাথায় কালাম চৌধুরীর সাড়া একেবারে শব্দ বন্ধ হয়ে যায়? এমন অনেক প্রশ্ন এলাকার সচেতন মহলের অর্ধশতাধিক লোকের। স্থানীয়রা সংশ্লিষ্ট মহলের নিকট বিএসএফের এমন নিষ্ঠুরতার বিচার দাবী করেন।
Share this article :

0 মন্তব্য:

Speak up your mind

Tell us what you're thinking... !

ফেসবুক ফ্যান পেজ

 
Founder and Editor : Rahmat Ali Helali | Email | Mobile: 01715745222
25, Point View Shopping Complex (1st Floor, Amborkhana, Sylhet Website
Copyright © 2013. জকিগঞ্জ সংবাদ - All Rights Reserved
Template Design by Green Host BD Published by Zakigonj Sangbad