Headlines News :
Home » » ওয়াজেদ আলী মজুমদার উচ্চ বিদ্যালয়ের পুর্ণমিলনী অনুষ্ঠানে প্রাণবন্ত আড্ডা ও আনন্দ উল্লাসে মেতে উঠেছিল শিক্ষার্থীরা

ওয়াজেদ আলী মজুমদার উচ্চ বিদ্যালয়ের পুর্ণমিলনী অনুষ্ঠানে প্রাণবন্ত আড্ডা ও আনন্দ উল্লাসে মেতে উঠেছিল শিক্ষার্থীরা

Written By zakigonj news on মঙ্গলবার, ৩১ মার্চ, ২০১৫ | ১০:৪৬ PM

রহমত আলী হেলালী
“কত বন্ধু-বান্ধব ও সহপাঠি অখলর লগে দেখা অইলো। তারার লগে কতদিন আগে যে দেখা অইছিল তা মনে পড়ের না। মাঝে মাঝে স্কুলে ছোটখাটো অনুষ্ঠান অইলেও ইতাত আইতে ফারিনা। ইবার আমরার লগর ভাই অখলে স্কুলও প্রাক্তণ পুর্ণমিলনীর আয়োজন করায় তেব হখলর লগে দেখা অইলো। যদিও অনুষ্ঠানটা আরোও সময় লইয়া করার দরকার আছিল তার বাদেও খারাপ নায়। অন্তত দুধর স্বাদ তো পানিত মিঠাইতে পারিয়ার।” কথাগুলো বলছিলেন জকিগঞ্জের ওয়াজেদ আলী মজুমদার উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তণ ক’জন শিক্ষার্থী। এ সময় তাদের মধ্যে প্রাণবন্ত আড্ডা চলছিল। যদিও এ অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের আড্ডার সময় কম ছিল তবুও অনুষ্ঠানের ফাঁকে ফাঁকে তাদের আনন্দ উল্লাস ছিল চোঁখে পড়ার মতো। জকিগঞ্জের মতো একটি মফস্বল এলাকার মাধ্যমিক পর্যায়ের বিদ্যালয়ে এমন আয়োজন প্রশংসনীয় বলে মনে করেন অনেকে। জানা যায়, ১৯৭৩ সালের ২১ ডিসেম্বর মুন্সিবাজার এলাকায় ‘মুন্সিবাজার জুনিয়র হাইস্কুল’ নামে এই বিদ্যালয়টি যাত্রা শুরু করে। ১৯৮৪ সালের মাঝামাঝি সময়ে তৎকালীন সমাজসেবী ও শিক্ষানুরাগী আলহাজ্ব হাফিজ আহমদ মজুমদার বিদ্যালয়ে লক্ষাধিক টাকার অনুদান প্রদান করেন। এ সময় তার অনুদানের কৃতজ্ঞতা স্বরূপ এলাকাবাসী প্রতিষ্ঠানটি নাম পরিবর্তন করে ‘ওয়াজেদ আলী মজুমদার উচ্চ বিদ্যালয়’ নামকরণ করেন। ১৯৮৫ সালে বিদ্যালয়টিতে নবম ও দশম শ্রেণী চালু হলে ১৯৮৬ সালে এসএসসি পরীক্ষায় ছাত্র/ছাত্রীরা অংশ নেয়। অনেকটা সফলতার সাথে দীর্ঘ ৩০ বছর ধরে এ বিদ্যালয়ের নামে ছাত্র/ছাত্রীরা এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে কৃতিত্বের সাথে উত্তীর্ণ হয়ে আসছে। বর্তমানে ওয়াজেদ আলী মজুমদার উচ্চ বিদ্যালয় থেকে উত্তীর্ণ অনেকে ছাত্র/ছাত্রী দেশ-বিদেশে বিভিন্ন সেক্টরে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করছেন। তবে এদের বেশীরভাগই জকিগঞ্জসহ সিলেটের বিভিন্ন স্থানে সরকারী ও বেসরকারী গুরুত্বপূর্ণ পদে কর্মরত রয়েছেন। তাদের মধ্য থেকে কয়েকজন প্রক্তণ ছাত্রের উৎসাহে গত ২৬শে মার্চ বৃহস্পতিবার বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে আয়োজন করা হয় ‘প্রাক্তণ ছাত্র পুর্ণমিলনী অনুষ্ঠান-২০১৫,। এ অনুষ্ঠানকে ঘিরে অনেক প্রস্তুতি নেয়া হলেও মূলত তা পূর্ণমিলনী না হয়ে হয়েছে নেহায়াত একটি বর্ণাঢ্য আলোচনা সভা। প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে, এটা প্রাক্তণ ছাত্র পুর্ণমিলনী অনুষ্ঠান না স্বাধীনতা দিবসের আলোচনা সভা? তবুও উপস্থিত বর্তমান ও প্রক্তণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে অনেকটা আনন্দ পরীলক্ষিত হয়। সামান্য সময়ের জন্য এ আয়োজন হলেও ফাঁকে ফাঁকে প্রাক্তণ ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের প্রাণবন্ত আড্ডা ও আনন্দ উল্লাস করতে দেখা গেছে। প্রাক্তণ শিক্ষার্থীরা সুযোগ পেলেই একে অপরের সাথে পুরনো দিনের স্মৃতি নিয়ে কথা বলতে দেখা যায়। দীর্ঘদিন পর ক্যাম্পাসের পরিচিত রূপ নতুন করে ধারণের বাসনাও ছিল অনেকের। ক্যামেরা ও মোবাইল হাতে ছবি তুলতে দেখা যায় অনেক প্রাক্তণদের। তাই স্বল্প সময়ের জন্য হলেও বর্তমান ও প্রাক্তণ শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিতে বিদ্যালয়ের সবুজ ক্যাম্পাস এক মিলনমেলায় পরিণত হয়। প্রাক্তণ শিক্ষার্থীদের অনেকের মতে, কিছুটা সময় হাতে নিয়ে অনুষ্ঠানে আয়োজন করলে প্রাক্তণদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠতো পুরো ক্যাম্পাস। কিন্তু সামাস্য সময়ে হলেও জকিগঞ্জের মাধ্যমিক পর্যায়ে কোন বিদ্যালয়ে এমন আয়োজন দেখা যায়নি।
এদিকে প্রাক্তণ ছাত্র পূর্ণমিলনীকে কেন্দ্র করে ঐদিন সকাল ১১টার সময় বিদ্যালয় প্রাঙ্গন থেকে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালীটি স্থানীয় এলাকা প্রদক্ষিণ করে পুনরায় বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে একত্রিত হলে শুরু হয় মূল পর্বের অনুষ্ঠান। বিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী কাকরদি তেরাদল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ নেজাম উদ্দিনের সভাপতিত্বে পূর্ণমিলনী অনুষ্ঠান শুরু হয়। প্রাক্তণ ছাত্র ব্যাংকার খায়রুল ইসলাম ও যুব সংগঠক এম এন জামান নজমুর যৌথ উপস্থাপনায় শুরুতেই স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রাক্তণ ছাত্র পরিষদের সভাপতি ব্যাংকার মাহমুদুর রহমান। আমন্ত্রিত অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট-৫ (জকিগঞ্জ-কানাইঘাট) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও পূবালী ব্যাংকের চেয়ারম্যান এলাকার কৃতি সন্তান আলহাজ্ব হাফিজ আহমদ মজুমদার, জকিগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইকবাল আহমদ, দৈনিক সিলেটের ডাকের নির্বাহী সম্পাদক আব্দুল হামিদ মানিক, লেখক কবি কালাম আজাদ, রাজনীতিবীদ লোকমান উদ্দিন চৌধুরী, জকিগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সাজনা সুলতানা হক চৌধুরী, কাজলসার ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এম.এ.রশীদ বাহাদুর, বারঠাকুরী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মহসিন মর্তুজা চৌধুরী টিপু, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুস ছালাম, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কফিল আহমদ, প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মোঃ খলিলুর রহমান ও শিক্ষক মুহিউদ্দিন হায়দার প্রমূখ। প্রাক্তণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে স্মৃতিচারণ করে বক্তব্য রাখেন জকিগঞ্জ উপজেলা সমবায় অফিসার মাহবুবুর রহমান, ইছামতি ‘ক’ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জামাল উদ্দিন লস্কর, মিছবাহ আহমদ জগলু, ইসমাঈল হোসেন, ফয়সল আহমদ, আলবাব হোসেন লজ, গুলজার হোসেন ও ইমরান আহমদ। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক বদরুল হক খসরু, আহমদুল হক চৌধুরী বেলাল, এনামুল হক মুন্না, আল হাছিব তাপাদার, আব্দুল মতিন লস্কর, আব্দুল হামিদ লস্কর, শিক্ষক মুসলেহ উদ্দিন, বাবু মাখন চন্দ্র, প্রাক্তন শিক্ষক আব্দুর রহমান, রসেন্দ্র চন্দ্র দাস, তৌফিক আহমদ চৌধুরী, খলিলুর রহমান, মুসলেহ উদ্দিন আহমদ, শফিকুল ইসলাম ও ফজলুর রহমান প্রমূখ। অনুষ্ঠানের সাংস্কৃতিক ও নাট্য পর্ব ছিল দর্শক মাতানোর মতো আয়োজন।
Share this article :

0 মন্তব্য:

Speak up your mind

Tell us what you're thinking... !

ফেসবুক ফ্যান পেজ

 
Founder and Editor : Rahmat Ali Helali | Email | Mobile: 01715745222
25, Point View Shopping Complex (1st Floor, Amborkhana, Sylhet Website
Copyright © 2013. জকিগঞ্জ সংবাদ - All Rights Reserved
Template Design by Green Host BD Published by Zakigonj Sangbad