Headlines News :
Home » » জকিগঞ্জ থেকে হারিয়ে গেছে এক সময়ের ঐতিহ্যের “কলের গান”

জকিগঞ্জ থেকে হারিয়ে গেছে এক সময়ের ঐতিহ্যের “কলের গান”

Written By zakigonj news on বুধবার, ৭ জানুয়ারী, ২০১৫ | ২:৩৫ PM

জাহানারা চৌধুরী ঝর্ণা
আগের দিনে জকিগঞ্জের প্রত্যান্ত অঞ্চলের প্রায় অভিজাত পরিবারে গান শোনার মাধ্যম ছিল কলের গান। সেই কলের গান এখন আর চোঁখে পড়েনা। প্রযুক্তির জয়যাত্রায় হারিয়ে গেছে কালের গর্ভে। ঠাঁই হয়েছে জাদুঘরের চৌহদ্দিতে। জানা যায়, ১৮৭৮ সালে টমাস এডিসন আবিস্কার করেন ফনোগ্রাফ। তখন থেকেই সঙ্গীতটা দরবারের ঘেরাটোপ থেকে বেড়িয়ে চলে এলো সাধারণ মানুষের ঘরে। আর আল্লাদে আটখানা হয়ে এর নাম সাধারণরাই দিল “কলের গান”। এ যুগের প্রজন্মরা থ্রি-কোয়ার্টার প্যান্ট পড়ে গান শোনে স্মার্ট ফোনে, আইফোনে, ট্যাবে, কম্পিউটার আর এমপি থ্রি প্লেয়ারে। তারা আর কিভাবে জানবে সেই আমলের কলের গানের গল্প-কল্প কথা। যতদূর জানা যায়, শব্দ সংরক্ষণর জনক টমাস এডিসন ১৪০ বছর আগে কাঠের বাক্সের উপর চোঙ্গা লাগানো এমন এক যন্ত্র আবিস্কার করলেন। সে বাক্সের মধ্যে গোলাকৃতির এক বস্তুর উপরে চাকতির মধ্যে পিন লাগিয়ে ঘোরালে শব্দ হয়। নাম দিলেন ফনোগ্রাফ। তারপর মাটির রেকর্ড থেকে প্লাষ্টিকের সূতোয় ঘূর্ণন রেকর্ড। এডিসনের পোষা প্রিয় কুকুরকে গ্রামোফোনের সেই চোঙ্গার সামনে বসিয়ে মনোগ্রাম করে নামকরণ করা হলো- ‘হিজ মাস্টার্স ভয়েজ’ বা এইচএমভি রেকর্ড। ১০৯৮ সালে জার্মানিতে প্রতিষ্ঠা পেল গ্রামোফোন কোম্পানির। কলকাতার বালিয়াঘাটায় এশিয়ার প্রথম ১৯০৮ সালের ১৯ জুন কলের গানের কারখানা স্থাপিত হয়। সেখানে গ্রামোফোন খুচরা যন্ত্রাংশও তৈরি হত। সঙ্গীত পিপাসুদের জন্য রবীন্দ্র, নজরুল, বাংলা গীত, নাট্য, কৌতুক সবই রেকর্ড করা হত। এমনকি কবি গুরু রবীন্দ্রনাথের স্বকন্ঠের গানও রেকর্ড করা হয়েছিল। জকিগঞ্জ উপজেলার মাত্র কয়েকটি অভিজাত পরিবারের বৈঠকখানায় অভিজাত্যের প্রতীক হিসাবে তা রাখা হতো। বিজ্ঞানের আশির্বাদে ও আকাশ সংস্কৃতির ছোঁয়ায় হারিয়ে গেছে আজ কলের গান। কালের বিবর্তনে গ্রামোফোনের পাশাপাশি এলো আরপিএম রেকর্ড প্লেয়ার (ছোট রেকর্ড)। তারপর এলো এলো অটো রেকর্ড প্লেয়ার। চলতো ব্যাটারী আর বিদ্যুতে। সেই সাথে বড় ফিতার স্পুল রেকর্ডার। বলা হতো টেপ রেকর্ডার। আশি থেকে নব্বই দাপালো ছোট ফিতার ক্যাসেট রেকর্ডার। এসময় চলে এলো ভিডিও ক্যাসেট। তারপরের ইতিহাস ডিজিটাল। একুশ শতক পর্যন্ত টিকে ছিল ক্যাসেট প্লেয়ার। খুব দ্রুতই সুপারসনির ডিজিটাল ধাক্কায় হারিয়ে গেল কালের অতলে। এলো কম্প্যাক্ট ডিস্ক (সিডি)। তার সাথে পাল্লা দিয়ে এলো ডিজিটাল ভিডিও ডিস্ক (ডিভিডি)। গান, স্থির ছবি, চলমান ছবি সবই সংরক্ষণের সুবিধা। এবার বিবর্তনের ধারায় ছোট্ট বস্তটিও বোঝা হয়ে গেল। হাতের মুঠোয় এলো আরও ছোট পেনড্রাইভ। সেটা চালাতে লাগে কম্পিউটার। ঝামেলা মনে হলো। এত সময় কি আছে আর মানুষের। বিজ্ঞান এবার সব ঢুকিয়ে দিল হাতের মুঠোফোনে। এখন হাতের মুঠোয় বিশ্ব বাতায়ন। অন্তর্জালেই (নেট) সবকিছু। নাচ, গান, কবিতা, উপন্যাস, চারু-কারু তথ্য- উপাত্ত। ফলে হারিয়ে গেল এক সময়ের ঐতিহ্যের কলের গান। সাথে সাথে আমাদের প্রজন্মের সু-পরিচিত টেপ রেকর্ডারও হারানের পথে। এখন জকিগঞ্জের উন্নত ও শিক্ষিত পরিবার গুলোতে গেলে দেখা যায় একাধিক কম্পিউটার ও ল্যাপটপ রয়েছে। যা দেশে আনন্দিত হচ্ছেন নতুন প্রজন্মের ছেলে-মেয়েরা, ঠিক তেনমনি হতবাক হচ্ছেন সেই কলের গানের প্রত্যক্ষদর্শী বয়োবৃদ্ধরা।
Share this article :

0 মন্তব্য:

Speak up your mind

Tell us what you're thinking... !

ফেসবুক ফ্যান পেজ

 
Founder and Editor : Rahmat Ali Helali | Email | Mobile: 01715745222
25, Point View Shopping Complex (1st Floor, Amborkhana, Sylhet Website
Copyright © 2013. জকিগঞ্জ সংবাদ - All Rights Reserved
Template Design by Green Host BD Published by Zakigonj Sangbad