Headlines News :
Home » » জকিগঞ্জে উত্তপ্ত রাজনীতির মাঠ ॥ সংঘর্ষ, ভাঙ্গচুর ও অগ্নিসংযোগ : পৃথক দু’টি মামলা দায়ের

জকিগঞ্জে উত্তপ্ত রাজনীতির মাঠ ॥ সংঘর্ষ, ভাঙ্গচুর ও অগ্নিসংযোগ : পৃথক দু’টি মামলা দায়ের

Written By zakigonj news on বুধবার, ১৪ জানুয়ারী, ২০১৫ | ৯:১৮ PM

রহমত আলী হেলালী
জকিগঞ্জে এমনটি হওয়ার কথা ছিল না। মফস্বল এলাকায় সংঘর্ষ, ভাঙ্গচুর ও অগ্নিসংযোগের বিষয়টি ছিল না কারো কল্পনাতেও। জকিগঞ্জে বছরের শুরুতেই যে যুদ্ধংদেহী অবস্থা তৈরী হবে তেমন ধারণা ছিল না কারোরই। কিন্তু হঠাৎ করেই পাল্টে গেল জকিগঞ্জের রাজনীতির দৃশ্যপট। বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের দেয়া গণতন্ত্র হত্যা দিবসের কর্মসূচী পালনকে কেন্দ্র করে অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে জকিগঞ্জ পৌরশহর। এ সরকারের আমলে প্রথমবারের মতো শক্তি প্রদর্শন করে বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীরা। জানা যায়, গত ৫ জানুয়ারী রোববার বিকাল সাড়ে ৪টায় গণতন্ত্র হত্যা দিবসের কর্মসূচী পালনের লক্ষ্যে জকিগঞ্জ উপজেলা বিএনপি-জামায়াত নেতাকর্মীরা পৌর শহরের মিছিল বের করে। মিছিলের এক পর্যায়ে তারা রাস্তায় রাখা একটি পুলিশী ভ্যান ভ্ঙ্গাচুর শুরু করে। এতে পুলিশ মারমুখী হয়ে উঠলে বিএনপি-জামায়াত নেতাকর্মীরা ক্ষিপ্ত হয়ে ইট-পাটকেল ছুড়তে শুরু করে। এসময় পুলিশ প্রায় ৬৫ রাউন্ড রাবার বুলেট ও টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে। সংঘর্ষে উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবায়ক ও কসকনপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন লষ্কর, পুলিশের এএসআই মঈন উদ্দিন, উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ইসমাইল হোসেন সেলিম, ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সেক্রেটারী কাওছার আহমদ, আওয়ামীলীগ নেতা শামীম আহমদ, আব্দুল বাতিন শামীম, হায়াত আলী, ছাত্রদল নেতা জুয়েল আহমদ বাচ্চু, শামসুল ইসলাম লেইছ, সেলিম আহমদ, সুয়েব আহমদ, নাজিম আহমদ, সুমন আহমদ, রোমান আহমদ, জুনেদুর রহমান, ব্যবসায়ী নুরু মিয়াসহ বেশ কয়েকজন আহত হন। আহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় কসকনকপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন লস্করকে সিলেট এম.এ.জি. ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। সংঘর্ষ চলাকালে জকিগঞ্জ পৌর শহরের আশপাশ এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে পুলিশের সাথে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীরা যোগ দিলে বিএনপি-জামায়াত নেতাকর্মীরা পিছু হটে। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে জামায়াত কর্মী আব্দুল কাদিরকে আটক করে। পরে শহরে আওয়ামীলীগ মিছিল  ও পথ সভা করে যে কোন প্রকার নৈরাজ্যের জবাব দেওয়ার প্রত্যায় ব্যক্ত করে। এ ঘটনায় জকিগঞ্জ থানা পুলিশের এসআই মোঃ হুমায়ন কবীর বাদী হয়ে বিএনপি-জামায়াতের ৫৪ জন নেতাকর্মীর নাম উল্লেখপূর্বক একটি পুলিশ এসল্ট মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ০১, তারিখ ০৫/০১/২০১৫ইং। মামলার আসামীরা হলেন ১। আব্দুল কাদির খান, পাঠানচক ২। শফিকুর রহমান চৌধুরী, কামালপুর, ৩। হেলাল আহমদ চৌধুরী, রসুলপুর ৪। হাসান আহমদ, মানিকপুর (সরিষা) ৫। আব্দুস সালাম, হাইদ্রাবন্দ ৬। আবুল কালাম আজাদ, হাইদ্রাবন্দ ৭। সামছুল ইসলাম লেইছ, সুলতানপুর ৮। জাহাঙ্গির শাহ হেলাল, খলাদাপনিয়া ৯। ইসমাঈল হোসেন সেলিম, মোহাম্মদপুর ১০। আব্দুল্লাহ আল মামুন হিরা, পীরেরচক ১১। শহিদুল হক, হাইদ্রাবন্দ ১২। নুরুল হুদা, পূর্ব আনন্দপুর ১৩। আব্দুল আজিজ, হাইল ইসলামপুর ১৪। মাসুক আহমদ, আমবাড়ী ১৫। নজরুল ইসলাম নমিক, পূর্ব কসকনকপুর ১৬। নাছির উদ্দিন, পিল্লাকান্দি ১৭। শামসুদ্দোহা, পূর্ব আনন্দপুর ১৮। হিফজুর রহমান, আমবাড়ী ১৯। আব্দুল মতিন, পঙ্গপট ২০। সেলিম আহমদ, বালাউট ২১। নমিক আহমদ, কেরাইয়া ২২। আব্দুস শুকুর, কেছরী ২৩। ইমন আহমদ, কেছরী ২৪। সজিব আহমদ, কেছরী ২৫। মাসুম আহমদ, ইলাবাজ ২৬। রুহেল আহমদ, আনন্দপুর ২৭। আব্দুল আহাদ মেম্বার, নানকার ২৮। আব্দুল জলিল মেম্বার, বড়পাথর ২৯। আব্দুল আহাদ, বেউর ৩০। আল মামুন, বেউর ৩১। মিছবাউল হক, লালগ্রাম ৩২। আশরাফ, পশ্চিমবন্দ, ৩৩। আব্দুল হালিম, পশ্চিমবন্দ ৩৪। দেলোয়ার হোসেন লস্কর, সুলতানপুর ৩৫। আব্দুর রউফ, আনন্দপুর ৩৬। সায়েদ আহমদ, গন্ধদত্ত ৩৭। রাশেদ আহমদ উরফে রাশেদুল হাসান, গন্ধদত্ত ৩৮। বাবুল আহমদ, লোহারমহল ৩৯। জাবেদ আহমদ, ডিগ্রী ৪০। সফিক আহমদ, হাজারীচক ৪১। নুরুল ইসলাম, সুন্দরারচক ৪২। আরিফ, ঘেছুয়া ৪৩। ফজলে আশরাফ মান্না, বেউর ৪৪। নেজাম উদ্দিন, নোয়াবাড়ী ৪৫। মহসিন মাহমুদ, খলাছড়া ৪৬। মইনুল হক, হাইল ইসলামপুর ৪৭। হাসান আহমদ, তিরাশী ৪৮। ছালেহ আহমদ, মাইজকান্দি ৪৯। শাহজাহান, নোয়াগ্রাম (পৌরসভা) ৫০। আব্দুর রাজ্জাক রুহেল, নান্দ্রিশ্রী ৫১। আল মামুন, পিয়াইপুর ৫২। জুনেদ আহমদ, পরচক ৫৩। এপলু আহমদ, খিলগ্রাম ৫৪। জামিল আহমদ, খাদিমান। এছাড়া একই মামলায় আরও ১৫০/১৬০ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করা হয়।
এদিকে গত ৭ জানুয়ারী বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে জকিগঞ্জের কাজলসার ইউনিয়নের নওয়াগ্রাম নামকস্থানে একটি বাসে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। এতে প্রায় ১৫ জন যাত্রী আহত হন। জানা যায়, সিলেট-জ-১১-০৬১৭ সিরিয়ালে মুক্তা পরিবহনের একটি বাস সিলেট থেকে জকিগঞ্জে উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। পথিমধ্যে সড়কের বাজার থেকে ৫/৬জন লোক যাত্রী সেজে গাড়িতে উঠে। সিলেট-জকিগঞ্জ রোডের নওয়াগ্রাম যাত্রী ছাউনীর নিকটে আসামাত্র ঐ যাত্রীরা নামার জন্য বলে। তাদের নামানোর জন্য ড্রাইভার গাড়ি থামালে গাড়িতে থাকা ঐ ৫/৬ জন লোক ড্রাইভারকে কিলঘুষি মেরে গাড়ীর স্টিয়ারিং হতে জোর পূর্বক সরিয়ে নেয়। এ সময় পূর্ব থেকে যাত্রী ছাউনীতে ওৎ পেতে থাকা আরোও কয়েকজন দুর্বত্ত লাঠি সোটা দিয়ে এলোপাতাড়ী আঘাত করে গড়ীর গ্লাস ভাংচুর ও পেট্রোল ছিটিয়ে গাড়ীতে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে গাড়ীর ড্রাইভার দুলাল আহমদ ও হেলপার নজরুল আহমদসহ প্রায় ১৫জন যাত্রী আহত হন। স্থানীয় এলাকাবাসী গাড়ীতে আগুন দেখে চিৎকার দিলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে ৩নং কাজলসার ইউনিয়ন চেয়ারম্যান এম.এ.রশীদ বাহাদুর ঘটনাস্থলে তাৎক্ষণিক উপস্থিত হয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসকে বিষয়টি জানালে ওসি সফিকুর রহমান খাঁনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আসেন। এলাকাবাসীসহ প্রায় একঘন্টা চেষ্ঠা করে ফায়ার সার্ভিসের লোকজন আগুন নেভাতে সক্ষম হয়। এ সময় জকিগঞ্জ-বিয়ানীবাজার সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার জ্যোর্তিময় সরকার উপস্থিত ছিলেন। এ ঘটনায় গাড়ীর ড্রাইভার দুলাল আহমদ বাদী হয়ে ৬ জনের নাম উল্লেখ করে বিশেষ ক্ষমতা আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। জকিগঞ্জ থানার মামলা নং ০২, তারিখ ০৭/০১/২০১৫ইং। মামলার আসামীরা হলেন ১। হিফজুর রহমান হিজন, পূর্ব দর্পনগর ২। মাহতাব উদ্দিন, পশ্চিম দর্পনগর (বাল্লাগ্রাম) ৩। আব্দুল কাইয়ুম, চারিগ্রাম ৪। আবুল কালাম আজাদ, চারিগ্রাম ৫। মুন্না, জামুরাইল ৬। শামছুল ইসলাম, চারিগ্রাম। এছাড়া একই মামলায় অজ্ঞাতনামা আসামী করা হয়েছে আরও ২০/২২জনকে। তবে এ মামলায় জনমনে দেখা দিয়েছে নানা ক্ষোভ ও অসন্তুষ। এলাকাবাসী মনে করেন ঘটনার সাথে উল্লেখিত আসামীদের কোন ধরণের সম্পৃক্ততা নেই। কতিপয় সুবিধাবাদীদের ইন্দনে মালিক পক্ষ এদের আসামী করে হয়রানী করছে। এ বিষয়ে কাজলসার ইউনিয়ন চেয়ারম্যান এম.এ.রশীদ বাহাদুর বলেন, যাদের নামে মামলা হয়েছে তাদের কেউ কেউ ঘটনার দিন সিলেটে ছিল। একটা ছেলে আগে রিক্সা চালাত বর্তমানে তার হাত ভাঙ্গা সেও এ মামলার আসামী। তিনি প্রকৃত দোষীদের সনাক্ত ও গ্রেফতারের দাবী জানিয়ে বলেন, নির্দোষ মানুষকে হয়রানী করা হলে এলাকায় আন্দোলন গড়ে তুলবো। জকিগঞ্জ থানার ওসি সফিকুর রহমান খাঁন বলেন, গাড়ী পুড়ানোর মামলাটি সম্পূর্ণ মালিক পক্ষের এখতিয়ারে হয়েছে। আমাদের তদন্তে কেউ নির্দোষ প্রমাণ হলে তাকে পরবর্তীতে বাদ দেয়া হবে।
Share this article :

0 মন্তব্য:

Speak up your mind

Tell us what you're thinking... !

ফেসবুক ফ্যান পেজ

 
Founder and Editor : Rahmat Ali Helali | Email | Mobile: 01715745222
25, Point View Shopping Complex (1st Floor, Amborkhana, Sylhet Website
Copyright © 2013. জকিগঞ্জ সংবাদ - All Rights Reserved
Template Design by Green Host BD Published by Zakigonj Sangbad