Headlines News :
Home » » জকিগঞ্জের কুল নদীতে মাছ ধরতে দল বেঁধে জাল ও পলো হাতে!

জকিগঞ্জের কুল নদীতে মাছ ধরতে দল বেঁধে জাল ও পলো হাতে!

Written By zakigonj news on মঙ্গলবার, ১১ নভেম্বর, ২০১৪ | ৩:১৩ PM

রহমত আলী হেলালী
জকিগঞ্জ উপজেলার নদ-নদী, খাল-বিল, পুকুর এমনকি সুরমা-কুশিয়ারা নদী থেকে দেশি মাছ বিলুপ্ত হওয়ার পথে। অবাধে ছোট মাছ আহরণ, ডিমওয়ালা মাছ নিধন, পুকুর-ডোবায় বিষ ঢেলে মাছ শিকার, কৃষি জমিতে কীটনাশক প্রয়োগসহ নানা কারণে দিন দিন বিভিন্ন জাতের দেশি মাছ বিলুপ্ত হচ্ছে। সে কারণে শৌখিন মৎস্য শিকারিদেরও জাল বা পলো হাতে আর সেভাবে দেখা যায় না। এ উপজেলায় আগে পলো, জাল, ছাই প্রভৃতি দিয়ে শৌখিন অনেকেই দলবেঁধে মাছ শিকার করত। অতীতের মতো শীতে খাল-বিল-নদীতে পানি কমে গেলে জাল ও পলো নিয়ে দলবেঁধে মাছ শিকারের দৃশ্য এখন আর চোঁখে পড়ে না। মাঝেমধ্যে ওই দৃশ্য কোথাও চোঁখে পড়লে দেখা যাবে সীমিতসংখ্যক লোককে। কিন্তু বহু দিন পর গত ১৯ ও ২০ অক্টোবর রবি ও সোমবার ব্যতিক্রম দৃশ্য দেখা গেল জকিগঞ্জের কাজলসার ইউনিয়নের চৌধুরী বাজারের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া কুলনদীতে। মাছ শিকারিরা দলবেঁধে জাল ও পলো দিয়ে মাছ শিকার করছে। এক সময়ের স্রোতস্বিনী কুলনদীটি শুকèা মৌসুমের শুরুতেই এখন পানিশূণ্য। দেশি মাছ নেই বললেই চলে। এরপরও বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা মাছ শিকারিরা জাল ও পলো দিয়ে কুলনদীতে মাছ ধরায় নেমে পড়ে। ভারত থেকে নেমে আসা সুরমা ও কুশিয়ারা নদী জকিগঞ্জ উপজেলাকে ঘিরে রেখেছে। ফলে সুরমা নদী থেকে বরজান খাল, বিয়াবাইল খাল, মরইর খাল, মুরাদ খাল, সুনাম খাল, পীরের খাল, বাবুর খাল, শিবের খাল, ছাগলী খাল, কুদালী খাল, হাতিদারা খাল, কুনাইর খাল হয়ে কুল নদীতে গিয়ে মিলিত হয়েছে। অপরদিকে কুশিয়ারা নদী থেকে রহিমপুরী খাল, সেনাপতির খাল, মছকন্দর খাল, পীরের খাল, শিকার মাহমুদ খাল, নাতের খাল, মাদার খাল, দাসের খাল, কাপনা খাল, তেলী খাল, পীরনগর খাল, বেরশ্রী খাল, জায়গীরদারী খাল হয়ে তাল নদীতে গিয়ে শেষ হয়েছে। একসময় শত শত লোকের মাছ শিকারকালে এ এলাকা উৎসবমুখর হয়ে উঠলেও তা আজ শুধুই স্মৃতি। উপজেলার বেশ কয়েকজন মাছ শিকারী জানান, ১০-১৫ বছর আগেও এ অঞ্চলে মাইকিং করে নদীসহ বিভিন্ন খালে জাল ও পলো দিয়ে মাছ শিকার করা হতো। নদী ও খালের দুই পাড়ে ভোর না হতেই হরেক রকম পণ্যের মেলা বসত। আনন্দ-উল্লাসের মাধ্যমে হৈ-হুল্লোড়ে ঝাঁকে ঝাঁকে পলো দিয়ে মাছ ধরত যুব-বৃদ্ধসহ নানা বয়সের মানুষ। এ সুযোগে ছোট ছেলেমেয়েসহ স্থানীয় মৎস্যজীবীরাও নেমে পড়ত মাছ ধরতে। নদী ও খালে হাঁটুপানি, কোথাও গলাপানি। মাইলের পর মাইল নদী-খালে হাজার হাজার মানুষ পলো নিয়ে নামত মাছ শিকারে। এখন আর ওই সব দৃশ্য দেখা যায় না। তবে কিছু লোক এখনো ঐতিহ্য ধরে রেখেছে। উপজেলার জামুরাইল গ্রামের জামাল উদ্দিন বলেন, এখন আর আগের মতো মাছ পাওয়া যায় না। পানি না থাকায় নদী-খালে মাছ নেই। আগে দেশি মাছের মধ্যে বোয়াল, শৈল, গজার, আইড়, রুই, কাতল, চিতলসহ হরেক রকমের মাছ পাওয়া যেত। কিন্তু এখন ওই সব মাছ প্রায় বিলীন হয়ে গেছে। কয়েক দিন আগে খালে মাছ ধরতে গিয়ে সারা দিনে একটি মাছও পাইনি।' জকিগঞ্জ উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) আনিছুর রহমান বলেন, সরকার নদী-নালা ও খাল-বিলে মাছ বৃদ্ধির লক্ষে যতেষ্ট আন্তরিক। এ লক্ষে আমরা সময়ে সময়ে উন্মুক্ত জলাশয় গুলোতে প্রচুর পরিমাণ পোনা অবমুক্ত করি। কিন্তু কতিপয় স্বার্থান্বেষী মহল পোনা মাছ গুলো অকালেই ধরে নিয়ে যায়। ফলে এখন নদী-নালা ও খাল-বিলে মাছ কম পাওয়া যায়।
Share this article :

0 মন্তব্য:

Speak up your mind

Tell us what you're thinking... !

ফেসবুক ফ্যান পেজ

 
Founder and Editor : Rahmat Ali Helali | Email | Mobile: 01715745222
25, Point View Shopping Complex (1st Floor, Amborkhana, Sylhet Website
Copyright © 2013. জকিগঞ্জ সংবাদ - All Rights Reserved
Template Design by Green Host BD Published by Zakigonj Sangbad