Headlines News :
Home » » আত্মহত্যার প্রবণতা রোধে সচেতনতা বৃদ্ধি জরুরী

আত্মহত্যার প্রবণতা রোধে সচেতনতা বৃদ্ধি জরুরী

Written By zakigonj news on রবিবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৪ | ১১:৩০ PM

ভৌগোলিক কারণেই আমাদের দেশের মানুষ বেশি আবেগপ্রবণ। নানা চাওয়া-পাওয়ার অভিঘাতে জর্জরিত বাঙালি জাতির আবেগপ্রবণতাটাও তাই বেশিমাত্রায় লক্ষণীয়। সামাজিক অস্থিরতা, দরিদ্রতা, অশিক্ষা, প্রতারণা, বেকারত্বসহ জীবন-জীবিকার নানা ক্ষেত্রে পরাজিত হয়ে মানুষ তার নিজের জীবনের প্রতি আস্থা হারিয়ে ফেলে। এর সঙ্গে যুক্ত নৈতিক অবক্ষয়ের মতো সামাজিক সমস্যা। ফলে এ অভিঘাত সহ্য করার মানসিকতা ও ধৈর্য হারিয়ে তারা আত্মঘাতী হয়ে ওঠে। গত ২৪ আগস্টের জকিগঞ্জ সংবাদের তিনটি আত্মহত্যার সংবাদ এ সাক্ষ্যই বহন করছে। সামগ্রীক অর্থে যা উদ্বেগজনক বলেই মনে হওয়া স্বাভাবিক। সংবাদ তিনটিতে একজন নারী ও দুই জন মেয়ের আত্মহত্যার কাহিনী তুলে ধরা হয়েছে। এ ধরণের সংবাদ রীতিমতো ভয়াবহ হিসেবে বিবেচিত। আমরা গণমাধ্যমের সংবাদে প্রায় প্রতিনিয়তই দেশের কোথাও না কোথাও আত্মহত্যার কথা জানতে পারছি। আলেম-ওলামা ও পীর মশায়েখদের পদদূলিতে ধন্য জকিগঞ্জ উপজেলায় দেশের অন্যান্য স্থানের তুলনায় আত্মহত্যার ঘটনা অনেকটা কম ছিল। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য যে, সম্প্রতি সময়ে তা অনেকাংশে বেড়ে গেছে। মনোরোগ বিশেষজ্ঞরা আত্মহত্যাকে মানসিক সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত করলেও বিভিন্ন সংবাদের তথ্যে এটি বেশ যৌক্তিভাবেই বলা চলে, আত্মহত্যা প্রবণতার পেছনে আমাদের সামাজিক অপসংস্কৃতি কম দায়ী নয়। পারিবারিক কলহ, নির্যাতন, প্রেমে ব্যর্থতা ইত্যাদি কারণেই মানুষ মূলত আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়। এদের মধ্যে নারীর সংখ্যা সর্বাধিক। আর এদের বেশিরভাগই তরুণ-তরুণী। যৌন নির্যাতন এবং যৌন হয়রানির কারণে স্কুল-কলেজ পড়ুয়া অনেক শিশু-কিশোরীর আত্মহত্যা আমাদের সমাজে দৃষ্টান্ত হয়ে রয়েছে। এ প্রবণতা একটি দেশের সামাজিক শান্তি বিনষ্টের অন্যতম কারণ হিসেবেই অভিহিত। বিশেষজ্ঞরা বর্তমানে আত্মহত্যার প্রবণতা বৃদ্ধির নেপথ্য কারণ হিসেবে দেখছেন নৈতিক অবক্ষয়কে। পারিবারিক অশান্তি ও প্রেমে ব্যর্থতার সঙ্গে যোগ হয়েছে নৈতিক অবক্ষয়ের মতো বিষয়। কয়েক বছর আগে জকিগঞ্জের শিমু চৌধুরীর সিলেট নগরীর ৪ তলা বাসার ছাদ থেকে প্রকাশ্যে দিবালোকে পড়ে আত্মহত্যা করে এক গৃহকর্মী। লোম হর্ষক এ ঘটনায় সিলেটবাসী হতবাক হলেও তার কারণ এখনও অপরিস্কার। এ সকল দুঃখজনক ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে এটি বেশ জোর দিয়েই বলা যায়, পারিবারিক শাসন দুর্বল হয়ে পড়ার কারণেই এমন উদ্বেগজনক ঘটনা ঘটে চলেছে। একজন সন্তানকে শিক্ষিত করতে একজন অভিভাবককে মাথার ঘাম পায়ে ফেলে অর্থ জোগাড় করতে হয়। এরপর যদি ওই শিক্ষার্থী তুচ্ছাতিতুচ্ছ আবেগে আত্মহত্যা করে, তাহলে সে পরিবারটির পথে বসা ছাড়া অন্য কোনো পথ খোলা থাকে না। এছাড়া আত্মহত্যা বেড়ে যাওয়ায় সমাজে এর বিরূপ প্রতিক্রিয়াও পড়ে। পুরুষতান্ত্রিক সমাজব্যবস্থায় নারীরা নানা ক্ষেত্রে, নানামুখী হয়রানির শিকার হয়ে আত্মহননের মতো ভয়াবহ পথে পা বাড়ায়। পারিবারিক কলহ, সামাজিকভাবে নিগৃহীত হওয়া, স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বিরোধ, হতাশা, বেকারত্ব, কর্মক্ষেত্রে হয়রানি, প্রেমে বিচ্ছেদ, বন্ধুত্বের মধ্যে মনোমালিন্য এবং ইভটিজিং জাতীয় সমস্যার কারণে আত্মঘাতী প্রবণতা উদ্বেগজনক হারে বেড়েছে। পত্রিকায় আত্মহত্যার যেসব খবর প্রকাশিত হয়, দেশে আত্মহত্যার সংখ্যা তার চেয়েও কয়েকগুণ বেশি বলেই আমাদের ধারণা। আত্মহত্যার কারণে সমাজ, রাষ্ট্রে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে। ফলে এই প্রবণতা থেকে উত্তরণের পথও রাষ্ট্রের নীতিনির্ধারক মহলদের খুঁজে বের করতে হবে। রাষ্ট্র বা সমাজ এই ভয়াবহ পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠতে না পারলে রাষ্ট্রের সামগ্রীক উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত হবে। দেশের শান্তিপ্রিয় জনগণ এমনটি নিশ্চয়ই চান না। আমাদের দেশের জনগণকে স্বাস্থ্য, শিক্ষা, পরিবেশ, যৌতুক, বাল্যবিবাহ, এসিড নিক্ষেপ, ইভটিজিং, বিদেশ গমনাগমনসহ নানা বিষয়ে সচেতন করার লক্ষ্যে মাঠপর্যায়ে সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোগের কমতি নেই। কিন্তু আত্মহত্যার প্রবণতা রোধে সরকারি-বেসরকারি কোনো পর্যায়ে জনসচেতনতামূলক কর্মকান্ড চোখে পড়ে না। কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে সামাজিক অনুষদের অধীন কাউন্সিলিংয়ের জন্য ব্যবস্থাও অপ্রতুল। আত্মহত্যার প্রবণতা রোধ বা এ জাতীয় ঘৃণ্য কাজ থেকে জনগণকে সচেতন করতে সরকারকেই কার্যকরী উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। সরকারিভাবে মাঠপর্যায়ে জনসচেতনতা বাড়াতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। সরকারের সদিচ্ছা থাকলে সরকারী প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি বেসরকারি সংস্থাগুলোকে এ কাজে সম্পৃক্ত করা যেতে পারে। জনসচেতনতা বৃদ্ধি পেলে সমাজ গতিশীল হবে। দূর হবে অস্থিরতা, যা আত্মহত্যার প্রবণতা রোধে সহায়ক হবে বলেই আমরা মনে করি।
Share this article :

0 মন্তব্য:

Speak up your mind

Tell us what you're thinking... !

ফেসবুক ফ্যান পেজ

 
Founder and Editor : Rahmat Ali Helali | Email | Mobile: 01715745222
25, Point View Shopping Complex (1st Floor, Amborkhana, Sylhet Website
Copyright © 2013. জকিগঞ্জ সংবাদ - All Rights Reserved
Template Design by Green Host BD Published by Zakigonj Sangbad