Headlines News :
Home » » জকিগঞ্জের সুরমা-কুশিয়ারার ভাঙ্গন রোধে চাই কার্যকর উদ্যোগ

জকিগঞ্জের সুরমা-কুশিয়ারার ভাঙ্গন রোধে চাই কার্যকর উদ্যোগ

Written By zakigonj news on শনিবার, ২১ জুন, ২০১৪ | ৬:৫০ PM

জকিগঞ্জবাসীর জন্য নদী ভাঙ্গন একটি পুরানো খবর। নদী ভাঙ্গন এখন গোটা উপজেলাবাসীর জন্য কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে। কেননা জকিগঞ্জ উপজেলাকে বরাক সৃষ্ট সুরমা ও কুশিয়ারা নদী ট নামক অক্ষরের মতো চেঁপে ধরেছে। ফলে সময়ে সময়ে উভয় নদীর বিভিন্ন স্থানে ভাঙ্গন শুরু হয়। আর এ ভাঙ্গন বর্ষায় বিশাল আকার ধারণ করে। সাপ্তাহিক জকিগঞ্জ সংবাদের গত সংখ্যায় প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে দেখা যায়, কুশিয়ারা নদীর ভাঙ্গনে উপজেলার গধাদর, বিরশ্রী, বড়পাথর, পীরনগর, জামডহর, লক্ষীবাজার, মাঝরগ্রাম, বড়চালিয়া, সুপ্রাকান্দি, গাগলাজুর, লোহারমহল, খলাছড়া, ভূঁইয়ারমুড়া, নরসিংপুর, হাইদ্রাবন্দ, আলমনগর, পীরেরচক, ছয়লেন, মাইজকান্দি, ছবরিয়া, শষ্যকুঁড়ি, মানিকপুর, রারাই, গঙ্গাজল, ইছাপুর, ভক্তিপুর, শহিদাবাদ ও আমলশীদ এবং সুরমা নদীর ভাঙ্গনে উপজেলার বারঠাকুরী, উত্তরভাগ, দিঘালী, ছালেহপুর, আইওর, নিয়াগুল, চিনিরচক, মৌলভীরচক, হরাইত্রিলোচন, সুনানন্দপুর, পুরাতন কালিগঞ্জ, বাল্লা, মরিচা ও আটগ্রাম এলাকার মানুষ একের পর এক ভাঙ্গনের কবলে পড়ে ভিটা মাটি হারাচ্ছে। প্রতিবেদন সূত্রে জানা যায়, ভাঙ্গনের কবলে পড়ে এসব এলাকার বেশ কিছু সরকারি স্থাপনা, স্কুল, মসজিদ, মাদ্রাসা এবং বসতভিটা ও ফসলী জমি নদী গর্ভে চলে গেছে। শুধু তাতেই শেষ নয়, বাংলাদেশের জায়গা ভেঙ্গে ভরাট হচ্ছে ভারতের জায়গা। ফলে ক্রমেই ছোট হয়ে আসছে বাংলাদেশের মাণচিত্র।  আমরা মনে করি, নদী ভাঙ্গন জকিগঞ্জের একটি বড় সমস্যা হলেও এই সমস্যার স্থায়ী সমাধান আজও হয়নি। এমন কি বন্যা ও ভাঙ্গন রোধে কার্যকর প্রতিরোধ ব্যবস্থাও গড়ে তোলা হয়নি। যদিও সরকার, এ কাজে নিয়োজিত পানি উন্নয়ন বোর্ডের মাধ্যমে বছরের পর বছর শত শত কোটি টাকা অকাতরে সুরমা ও কুশিয়ারার ভাঙ্গন ঠেকাতে ব্যয় করেছে। মূলত: নদীর গতি প্রকৃতি সম্পর্কে সঠিক গবেষণা না করা এবং সময় মতো নদী ভাঙ্গন রোধ ও নদীর নাব্যতা রক্ষায় সমন্বিত উদ্যোগ না নেয়ার কারণে নদী ভাঙ্গন এখন আমাদের একটি স্থায়ী সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। দুর্ভাগ্য আমাদের স্বাধীনতার প্রায় অর্ধশত বছরের কাছাকাছি এসেও সুরমা-কুশিয়ারার ভাঙ্গন রোধে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে পারিনি। সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর ভাঙ্গন রোধে যে ধরণের পদক্ষেপ নিয়ে কাজ করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড তা কতটা কার্যকর সে নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে যেমন নদী ও পরিবেশ বিশেষজ্ঞদের তেমনি সরাসরি নদী পাড়ের মানুষেরও। যথা সময়ে যথাযথভাবে কাজ না করার অভিযোগও বেশ পুরানো। সেজন্য সুরমা-কুশিয়ারার ভাঙ্গন রোধে চাই যথাযথ ও কার্যকর উদ্যোগে। কেবল ভাঙ্গন দেখা দিলে তথাকথিত রক্ষা প্রকল্প করে নদী গর্ভে কনক্রিট স্লাব বা জিও ব্যাগ ফেলে কোন কাজের কাজ হবে না। এতে সরকারের তথা জনগণের অর্থের অপচয় হচ্ছে। তাই এ ধরণের মুখ রক্ষার ও পকেট ভরার প্রকল্প নয় চাই মানুষের দুঃখ মোচনে নদী ভাঙ্গন রোধে কার্যকর উদ্যোগ। নদী ভাঙ্গনের এই বিষয়টি তাই ভাবতে হবে গুরুত্ব সহকারে এবং সে মতো নিতে হবে দীর্ঘ মেয়াদী পদক্ষেপ। আমরা আশা করি, সরকার এ ব্যাপারে যথাযথ উদ্যোগ নিবে যাতে মানুষের দুঃখ মোচন করা যায়।
Share this article :

0 মন্তব্য:

Speak up your mind

Tell us what you're thinking... !

ফেসবুক ফ্যান পেজ

 
Founder and Editor : Rahmat Ali Helali | Email | Mobile: 01715745222
25, Point View Shopping Complex (1st Floor, Amborkhana, Sylhet Website
Copyright © 2013. জকিগঞ্জ সংবাদ - All Rights Reserved
Template Design by Green Host BD Published by Zakigonj Sangbad